মেনু নির্বাচন করুন
পাতা

উত্তম মাছ চাষ অনুশীলন

উত্তম মাছচাষ অনুশীলণ (GooD Aquaculture Practics) করে নিরাপদ চিংড়ি উৎপাদনে করণীয়

  1.  
  2.  
  3. প্রয়োজনমত, সময়মত, দুষণমুক্ত পানি : ৩ ফুটের নিচে নয়, ৪ ফুট হলে ভাল হয়।
  4.  পুরো মৌসুম পানির পরিবেশ  বা গুনাগুন ভাল রাখতে হবে
  5.  পুকুরে নিয়মিত পানির গুণগতমান পর্যবেক্ষণ ও পরীক্ষা করতে হবে।
  6.  চাষের পুরো সময় পানির রং হালকা সবুজ বা বাদামী রাখতে হবে।
  7.  নিয়মিত চিংড়ির স্বাস্থ্য পর্যবেক্ষণকরতে হবে।
  8. চিংড়ির গায়ের রং উজ্বল ও ঝকঝকে কি না দেখতে হবে
  9. চিংড়ি খাবার খায় কিনা, বড় হচ্ছে কি না দেখতে হবে
  10. চিংড়িতে রোগবালাইয়ের লক্ষণ আছে কি না দেখতে হবে।
  11.  রোগ প্রতিরোধ ও নিয়ন্ত্রণ ব্যবস্থা বিদ্যমান থাকতে হবে।    
  12.  রোগ হলে তাৎক্ষনিকভাবে উপযুক্ত ককর্তৃপক্ষকে জানাতে হবে।
  13.  
  14. ম্যানুয়েল নির্দেশনা অনুযায়ী উৎস পানির গুণগতমান পরীক্ষার রেকর্ড থাকতে হবে।
  15. দুই ফসলের মাঝখানে পুকুর শুকাতে অথবা প্রস্ত্তত করতে হবে।
  16. সঠিক ঘনত্বে পিএল মজুদ করতে হবে : সনাতন পদ্ধতি, উন্নত সম্প্রসারিত,আধানিবিড়
  17. পিএল সরবরাহকৃত হ্যাচারির নাম এবং পিসিআর টেষ্ট রিপোর্ট থাকতে হবে।
  18. অবাঞ্চিত প্রজাতির প্রবেশ বন্ধ করার জন্য স্ক্রিনিং করে পানি ওঠাতে হবে।
  19. উন্নত চাষ পদ্ধতির ক্ষেত্রে অ্যারেশনের ব্যবস্থা থাকতে হবে।
  20. বাণিজ্যিক খাদ্য - লাইসেন্সধারীর নিকট থেকে ভালমানের  খাদ্য সংগ্রহ করতে হবে।
  21. খামারে তৈরি খাদ্যের ক্ষেত্রে  ব্যবহৃত উপকরণের নাম উলেস্নখ করতে হবে।
  22. চিংড়ির চাহিদা অনুযায়ী সুষ্ঠু খাদ্য প্রয়োগ ও ব্যবস্থাপনা পদ্ধতি অনুসরণ করতে হবে।
  23. হ্যাচারীর সুস্থ্য সবল
  24. নিরোগপোনা মজুদ
  1. খাবার কিনতে যা দেখতে হবে-
  2.  খাদ্য আইনে খাবারে ঔষধ/রাসায়নিক

     বিধিনিষেধ মানা হয়েছে কি না।

  1. খাদ্যের গুনগতমান বা প্রয়োজনীয় উপাদান
  2. খাদ্য মেয়াদ উত্তীর্ণ কি না
  3. খাদ্য দলাবাধা কিংবা ফাঙ্গাস যুক্ত কি না
  4. প্যাকেটের গায়ে প্রয়োজনীয় তথ্য আছে কি না
  5. দোকানে বা গুদামে খাদ্যের সংরক্ষণ ব্যবস্থা
  6. খাদ্য দূষণ প্রতিরোধ ও মান বজায় রাখার জন্য
  7.  পাঁকা মেঝের  উপরে পাটাতন বিছিয়ে খাদ্য
  8. খাদ্যে ইদুর, পোকামাকড় লেগেছে কি না
  1. শুধুমাত্র লাইসেন্স প্রাপ্ত দোকান থেকে প্রেসক্রিপশন মোতাবেক ঔষধ কিনতে হবে।
  2. শুধুমাত্র অনুমোদিত ঔষধপত্র, রাসায়নিক দ্রব্যাদি ও প্রোবায়োটিক্র ব্যবহার ।
  3.  আহরণের পূর্বে অনুমোদিত  ঔষধপত্র ও রাসায়নিক দ্রব্যাদি ব্যবহারের ক্ষেত্রে

    লেবেলিং এর নির্দেশনা অনুযায়ী প্রত্যাহার কাল অনুসরণ করতে হবে।

  1.  মজুদকৃত ও ব্যবহৃত  ঔষধপত্র, রাসায়নিক  ও প্রোবায়োটিক্র এর লিখিত  রেকর্ড।
  2.   চিংড়িতে অবশিষ্টাংশের উপস্থিতির সম্ভাবনা থাকলে পরীক্ষার জন্য নমুনা  সংগ্রহ ।

 ঔষধপত্র, রাসায়নিক দ্রব্যাদি ও প্রোবায়োটিক্র  যথাযথভাবে সংরক্ষণ করতে হবে।

  1. আহরণের কমপক্ষে ৪৮ ঘন্টা পূর্বে খাদ্য প্রয়োগ বন্ধ করতে হবে। জানে কি না।
  2.  আহরিত চিংড়ির জন্য আগে থেকে  পরিবহনের পাত্র, বরফ এবং  পরিবহনের

    ব্যবস্থা করে রাখতে হবে। কী কী করতে হবে জানে কি না/ ম্যান্যুয়েল

  1. আহরণের সময় নিষিদ্ধ রাসায়নিক ব্যবহার করা যাবে না। নিষিদ্ধ তালিকা
  2. আহরণোত্তর পরিচর্যা এবং পরিবহনে উত্তম স্বাস্থ্য ব্যবস্থা অনুসরণ করে অথবা যাদের মৎস্য অধিদপ্তরের লাইসেন্স আছে এমন ক্রেতা নির্বাচন করতে হবে। কুইনাইন সারাবে কে?
  3.  আহরণের সময় দূষণ প্রতিরোধে উত্তম স্বাস্থ্য ব্যবস্থাপনা পদ্ধতি  অনুসরণ করতে

    হবে। উত্তম স্বাস্থ্য ব্যবস্থাপনা জানে কি না/ম্যানুয়েল আছে কি না।

  1.  আহরণোত্তর পরিচর্যায়  উত্তম প্র্যাকটিস  অনুসরণ করতে হবে। লিখিত আছে কি না

ছবি


সংযুক্তি


সংযুক্তি (একাধিক)



Share with :

Facebook Twitter